সিলেটের এমসি কলেজে গণধর্ষণের ঘটনায় জড়িতদের পক্ষে কোনো আইনজীবী মামলা লড়তে আসেননি। এবার পুলিশের নির্যাতনে নিহত যুব রায়হান উদ্দিনের খুনীদের পক্ষেও কোনো আইনজীবী মামলা পরিচালনা করতে সম্মত হননি। উল্টো ভুক্তভোগী দু’টি পরিবারের পাশে থেকে ন্যায় বিচারের স্বার্থে আইনি সহায়তার আশ্বাস দিয়েছেন তারা।

এমসি কলেজের ঘটনার রেশ কাটতে না কাটতেই সিলেটের বন্দরবাজার ফাঁড়িতে পুলিশি নির্যাতনে মারা গেছেন যুবক রায়হানউদ্দিন। এ ঘটনায় সিলেট ফের উত্তপ্ত। গত এক সপ্তাহ ধরে সিলেটে চলছে টানা আন্দোলন। প্রতিদিনই সিলেটের রাজপথে বিক্ষোভ, মিছিল, সড়ক অবরোধ অব্যাহত রয়েছে। ইতিমধ্যে সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের প্রাথমিক তদন্তে প্রমাণিত হয়েছে- বন্দরবাজার ফাঁড়ি ইনচার্জ এসআই আকবর হোসেন ভূঁইয়াসহ পুলিশ সদস্যদের পিটুনিতে মারা গেছে রায়হানউদ্দিন।

এ কারণে এসআই আকবর ভূঁইয়াসহ চার পুলিশ সদস্যকে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়েছে। আরো তিনজনকে প্রত্যাহার করা হয়েছে। তবে এখন পর্যন্ত পুলিশ গ্রেপ্তার করতে পারেনি প্রধান সন্দেহভাজন এসআই আকবর হোসেন ভূঁইয়াকে। এ নিয়ে ক্ষোভের অন্ত নেই সিলেটে। নিহত রায়হানের পরিবারকে সান্ত্বনা জানাতে সবাই ছুটে যাচ্ছেন তার বাড়িতে।

গত শুক্রবার সন্ধ্যায় নিহত রায়হানের বাড়িতে যান সিলেট জেলা আইনজীবী সমিতির একটি টিম। । এ সময় সিনিয়র আইনজীবীরা জানান, প্রতিবাদ এবং ঘৃণা স্বরূপ তারা রায়হানের খুনিদের পক্ষে আদালতে লড়বেন না। বরং রায়হানের পরিবার আইনি সহায়তা চাইলে সিলেট জেলা বার সেটি দেবে। এবং রায়হানের খুনের ন্যায় বিচার নিশ্চিত করতে আইনজীবীরা পরিবারের পাশে থাকবে।

আইনজীবীদের এই সান্ত্বনায় আশ্বস্ত হয়ে মা সালমা বেগম জানিয়েছেন, আমার ছেলেকে আর পাবো না। তবে তাকে যেভাবে নির্যাতন করে মারা হয়েছে আমরা সেটির বিচার চাই। ন্যায় বিচার নিশ্চিত করার জন্য আইনজীবীরা পাশে থাকার কথা বলেছেন। আমি তাদের কাছে কৃতজ্ঞ।
সূত্র-মানবজমিন।

বার্তাবাজার/এসজে

Leave a Reply

%d bloggers like this: