ঢাকা-৫ আসনে উপনির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন বিএনপির প্রার্থী সালাউদ্দীন আহমেদ। তবে এ আসনের ভোটার না হওয়ায় তিনি নিজের ভোট দিতে পারছেন না। এ জন্য আফসোস প্রকাশ করেছেন সালাউদ্দীন। আর এ কারণে সরকার ও নির্বাচন কমিশনকে দায়ী করেছেন তিনি।

আজ শনিবার (১৭ অক্টোবর) সকাল পৌনে দশটায় যাত্রাবাড়ী আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজ কেন্দ্র পরিদর্শনের মাধ্যমে সালাউদ্দীন তার দিনের কর্মসূচি শুরু করেন। প্রায় ১৫ মিনিট কেন্দ্র পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপ করে তার ভোটার না হওয়ার বিষয়টি জানান তিনি।

সালাউদ্দীন বলেন, ২০০৮ সালে আমি এই আসনের ভোটার ছিলাম। পরে ২০১৮ সালে আমাদের দল যখন নির্বাচনে অংশ নেয়, তখন ঢাকা-৪ আসলে আমি ভোটার হই। পরবর্তীতে আবার এই আসনের জন্য আবেদন করলেও নির্বাচন কমিশন এবং সরকারের কারণে আমি ভোটার হতে পারিনি।

আওয়ামী লীগের প্রার্থী কাজী মনিরুল ইসলাম মনু যাত্রাবাড়ী আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজ কেন্দ্রে ভোট দিয়ে গণমাধ্যমে যে বক্তব্য দিয়েছেন, তার সমালোচনা করেন সালাউদ্দীন।

তিনি বলেন, আওয়ামী লীগের এই প্রার্থীও এ আসনের ভোটার না। তিনি যদি ভোট দেওয়ার কথা বলে থাকেন, তাহলে সেটা মিথ্যা কথা বলেছেন।

বিএনপি সূত্রে জানা গেছে, গত ৩০ ডিসেম্বর একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ঢাকা-৪ আসনের ধানের শীষের প্রার্থী হয়ে নির্বাচন করেছিলেন সালাউদ্দীন আহমেদ। ওই সময় তিনি ঢাকা-৫ থেকে নিজের ভোট স্থানান্তর করে নেন ঢাকা-৪ আসনে। এবার নির্বাচনের আগে ঢাকা-৪ থেকে নিজের ভোট আবার ঢাকা-৫ আসনে স্থানান্তর করতে নির্বাচন কমিশনে আবেদন করেন। কিন্তু সময় স্বল্পতার কারণে নির্বাচনের আগে তার ভোট স্থানান্তর সম্ভব নয় বলে জানিয়ে দেয় কমিশন।

ঢাকা-৫ আসনে আরও চারজন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। তারা হলেন- গণফ্রন্টের এইচ এম ইব্রাহিম ভূইঁয়া, জাতীয় পার্টির মীর আব্দুস সবুর, বাংলাদেশ কংগ্রেসের মো. আনছার রহমান শিকদার ও ন্যাশনাল পিপলস পার্টির মো. আরিফুর রহমান (সুমন মাস্টার)। গত ৬ মে হাবিবুর রহমান মোল্লার মৃত্যুতে ঢাকা-৫ আসন শূন্য হয়।

অর্থসূচক/কেএসআর

The post নিজের ভোট দিতে না পারায় আফসোস সালাউদ্দীনের first appeared on ArthoSuchak.

Leave a Reply

%d bloggers like this: