<

p style=”text-align: justify;”>ভারতের উত্তর প্রদেশের দেওরিয়া উপ-নির্বাচনে ইন্ডিয়ান ন্যাশনাল কংগ্রেসের (আইএনসি) পক্ষ থেকে একজন ধর্ষককে মনোনয়ন দেওয়া হয়েছে – রাজ্য কংগ্রেসের সভায় এমন অভিযোগ তোলার পর, নিজ দলের পুরুষ কর্মীদের হাতে তারা দেবী যাদব নামের এক নারী কর্মী যৌন হয়রানি এবং নিপীড়নের শিকার হয়েছেন। খবর এএনআই।

রোববার (১১ অক্টোবর) মোবাইল ফোনে ধারণ করা ওই ঘটনার ভিডিও ফুটেজ ভারতের নেটিজেনদের মধ্যে ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়ে।

বার্তাসংস্থা এএনআই প্রকাশিত ওই ভিডিওতে দেখা যায়, তারা দেবী যাদবকে কয়েকজন পুরুষ কর্মী ধাক্কা দিচ্ছেন এবং কিল-ঘুষি মারছেন। এরপর, দুইজন এসে তারা দেবীকে উদ্ধার করে বাইরে নিয়ে আসেন।

এদিকে, কংগ্রেসের দেওরিয়া জেলা সভাপতি ধর্মেন্দ্র সিং এবং সহ-সভাপতি অজয় সিংসহ আরো দুইজনকে অভিযুক্ত করে তারা দেবী স্থানীয় থানায় যৌন হয়রানি এবং নিপীড়নের অভিযোগ দায়ের করেছেন বলে জানিয়েছে এএনআই।

এ ব্যাপারে তারা দেবী যাদব বলেছেন, একদিকে পার্টির কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব হাথরাসে ধর্ষণ ও হত্যার শিকার দলিত নারীর হয়ে কথা বলছেন আবার অন্যদিকে উপ-নির্বাচনে পার্টি থেকে একজন ধর্ষককে মনোনয়ন দেওয়া হচ্ছে। একই পার্টির দুই রকম চরিত্র মানা যায় না।

তিনি আরও বলেন, অবিলম্বে দেওরিয়া উপ-নির্বাচনে মুকন্দ ভাস্করের মনোনয়ন বাতিল করতে হবে।

অন্যদিকে, দেওরিয়া জেলা কংগ্রেসের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে – কংগ্রেসের কেন্দ্রীয় সেক্রেটারি শচীন নায়কের সঙ্গে দেখা করতে এসে তারা দেবী যাদব এবং তার দুই সঙ্গী শচীন নায়ককে লক্ষ্য করে ফুলের বুকেট ছুড়ে মারেন। তারপরই, ঘটনাস্থলে হাতাহাতি শুরু হয়।

তবে, শচীন নায়ককে আঘাত করার অভিযোগ অস্বীকার করেছেন তারা দেবী।

এর আগে, ভারতীয় জনতা পার্টির (বিজেপি) এমএলএ জানমেজায় সিং এর মৃত্যুর পর দেওরিয়া আসন শূন্য হয়। ওই আসনে উপ-নির্বাচনে কংগ্রেসের পক্ষ থেকে মুকুন্দ ভাস্করকে মনোনয়ন দেওয়া হয়। সেই মুকুন্দ ভাস্করকেই ধর্ষক হিসেবে উল্লেখ করেছেন তারা দেবী যাদব।

অপরদিকে, কংগ্রেসের সভায় নারী কর্মীকে নিপীড়নের ঘটনায় ভারতজুড়ে সমালোচনার ঝড় উঠেছে। কয়েকজন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী এবং নারী অধিকার আন্দোলনের কর্মী টুইটারে এ ঘটনায় ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন।

The post কংগ্রেসের সভায় নারী নিপীড়ন – ভিডিও ভাইরাল

appeared first on Sarabangla | Breaking News | Sports | Entertainment.

Leave a Reply

%d bloggers like this: